সিনতাই চক্রের মূলহোতা শ্রমিকলীগ নেত্রীসহ আটক ৪।

সিনতাই চক্রের মূলহোতা শ্রমিকলীগ নেত্রীসহ আটক ৪।

এমএ কাশেম ভূঁইয়া-হোমনা (কুমিল্লা)
সিনতাই চক্রের মূলহোতা তিতাস উপজেলা শ্রমিকলীগের মহিলা সম্পাদিকাসহ কুমিল্লার হোমনায় ৪ নারী ছিনতাইকারীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় জনতা।
সোমবার (৯আগস্ট) দুপুরে উপজেলার পুরাতন বাস স্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
ছিনতাইকারীরা হলো আঁখি সরকার (২০), স্বামী রাজা মিয়া, সাং পুরান গৌরিপুর, থানা দাউদকান্দি, হাছিনা আক্তার (২৬), স্বামী বিল্লাল হোসেন, সাং আলীরগাও, শিউলী (২০), স্বামী মোঃ নাছির, সাং বৈদ্যারকান্দি ও তাদের মূলহোতা তিতাস উপজেলা শ্রমিকলীগের নবগঠিত কমিটির মহিলা সম্পাদিকা মো. মৌসুমী (২৫), স্বামী রুবেল, সাং জিয়ারকান্দি সর্বথানা তিতাস।
অভিযোগ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, সোমবার ( ৯আগস্ট) শ্রীমদ্দি গ্রামের মো. মনু মিয়া তার মেয়ে শারমিনকে নিয়ে ২ লাখ ১২ হাজার টাকা সোনালী ব্যাংক হোমনা শাখায় জমা দিতে যায়। ব্যাংকে ভীর থাকায় জমা না দিয়ে বাড়িতে ফিরে যেতে রওয়ানা হয় এবং হোমনা বাজারের মেঘনা হাসপাতালের সামনের সড়কে মেয়েকে দাড় করিয়ে অটোরিক্সা ডাকতে গেলে নারী ছিনতাই চক্রের সদস্যরা কৌশলে ব্যাগ থেকে টাকা ছিনতাই করে পালাতে চেষ্টা করে। এ সময় ১ লাখ ১২ হাজার টাকা মাটিতে পড়ে যায়।
এসময় শারমিনের চিৎকারে উপস্থিত লোকজন ৩জন নারী ছিনতাইকারিকে আটক করে এবং তারা টাকা সিনতাইয়ের ঘটনা স্বিকার করে। এরপর বাকি সদস্যদের সাথে কৌশলে যোগাযোগ করে সিনিয়ে নেয়া ১লাখ টাকার মধ্যে ৮০হাজার টাকা দিলেই আটকদের ছেড়ে দেয়া হবে এমন প্রলোভন দিলে তিতাসের “পরীমণি” খ্যাত শ্রমিকলীগ সম্পাদিকা ৮০হাজার টাকা নিয়ে ঘটনাস্থলে যায়।
এরপর এই ৪নারী ছিনতাইকারীকে আটকে রেখে থানা পুলিশকে খবর দিয়ে তাদেরকে সোপর্দ করা হয়।
আজ মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) সকালে মনু মিয়া বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করলে পুলিশ তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করা হয়।
এ ব্যাপারে হোমনা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আবুল কায়েস আকন্দ সাংবাদিকদের জানান, একটি ছিনতাইকারী চক্র দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন স্থানে ছিনতাই করে আসছিলো। এদের মধ্যে ৪জন জনতার হাতে ধরা পড়েছে। ছিনতাইকারীদের কাছ থেকে মনু মিয়ার ১ লাখ ৯২ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে এবং অভিযোগের ভিত্তিতে থানায় মামলা হয়েছে।
নারী সিনতাইকারী চক্রের মূলহোতাসহ ৪জনকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। তবে একজনের বিরুদ্ধে নানাহ অসামাজিক কার্যকলাপের সাথে জড়িত থাকার বিষয়টি তিনি শুনছেন বলেও জানান।
এদিকে মৌসুমী নামের তিতাস উপজেলা শ্রমিকলীগের নবগঠিত কমিটির মহিলা সম্পাদিকা পদ বহিস্কার করা হবে বলে কমিটির সভাপতি মো. সাজ্জাদ সিকদার ও সাধারণ সম্পাদক মো. আলআমিন সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তারা জানান, বঙ্গুবন্ধুর আদর্শের কমিটিতে সংগঠন বিরুধী কর্মকান্ড করে কেউ পার পাবে না।
এক প্রশ্নের জবাবে তারা বলেন, কেউ অপকর্ম করে গোপনে-সেটা কমিটি কোনভাবেই দায় নিবে না।
বিভিন্ন সূত্র নিশ্চিত করে, মৌসুমী দীর্ঘ ধরেই সিনতাই ও ভ্রাম্যমাণ ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত। পাশাপাশি নানাহ অসামাজিক কার্যকলাপের তথ্যও ছবি সাসাজিক মাধ্যমে তোলপাড় হচ্ছে।
তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে সবধরনের আইনি ব্যবস্থারও দাবি জানান সুশিল সমাজ।

See also  জনগণকে সাথে নিয়েই একটা সুন্দর সমাজ গড়তে চাই।

Notice: ob_end_flush(): failed to send buffer of zlib output compression (0) in /home/grambanglar/public_html/wp-includes/functions.php on line 5107