রাস্তার বেহালদশা, যেন দেখার কেউ নেইঃ তিতাসের খবর।

রাস্তার বেহালদশা, যেন দেখার কেউ নেইঃ তিতাসের খবর।

হালিম সৈকত, তিতাস,কুমিল্লা।

এ খবর টি সাধারণ মানুষের ভোগান্তির একটা চরম পর্যায়ের খবর।সংস্কারের অভাবে বেহাল গাজীপুর টু জগতপুর রাস্তাটি। দীর্ঘ ৩ কিলোমিটার রাস্তাটির চরম বেহালদশা। গোটা রাস্তায় পিচের আস্তরণ উঠে অংসখ্য খানাখন্দ তৈরি হয়েছে। ওই সব গর্তে এখন বালি আর ধূলাবালির খেলা। বর্ষা মৌসুমে জল জমে প্রায় ডোবায় পরিণত হয় বলে অভিযোগ স্থানীয় বাসিন্দাদের। যাতায়াত করাই দুষ্কর।

গুরুত্বপূর্ন গাজীপুর- জগতপুর বাজার রাস্তাটি একটি গুরুত্বপূর্ণ রাস্তা। প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে কমবেশী কয়েক হাজারেরও বেশি মানুষ যাতায়াত করেন। চলে অংসখ্য সিএনজি, রিকসা ও অটোরিকশা। রাস্তাঘাটের এমন খবর প্রায়ই শুনা গেলেও এটা একটা মারাত্মক পর্যায়ের ভোগান্তির খবর।

See also  মহিষমারীতে হাড়ির খোঁজে বাড়ি'র ঈদ উপহার।

খানাখন্দে ভরপুর রাস্তাটিতে হরহামেশাই ঘটছে ছোটখাট দুর্ঘটনা। বেহাল রাস্তাটি অবিলম্বে সংস্কারের দাবি তুলেছেন স্থানীয় মানুষজন।

এই রাস্তার ধারেই রয়েছে বেশ কয়েকটি প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক স্কুল ও মাদ্রাসা ও ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়। প্রতিদিন তাই এই রাস্তার উপরই নির্ভর করেন হাজার হাজার বাসিন্দা।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বেশ কয়েক বার রাস্তা সংস্কারের জন্য লোকজন এসেছিল কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হচ্ছে না। রাস্তাটির কিছু অংশ বলরামপুর ইউনিয়ন ও কিছু অংশ জগতপুর ইউনিয়নে পরেছে। প্রায় ১২ বছর যাবত রাস্তাটির দূরবস্থা। মনে হয় যেন দেখার কেউ নেই।

See also  কুমিল্লার হোমনায় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে কয়েক কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি।

সাগরফানা এলাকার মোঃ মনিরুজ্জামান বলেন, ১২ বছর ধরে রাস্তাটির চিত্র খুবই খারাপ। চলার মতো অবস্থা নেই। রোগী কিংবা গর্ভবতী মহিলাদের খাটিয়ায় করে হাসপাতালে নিতে হয়। সে যেন এক বিভীষিকাময় পরিস্থিতি । রাস্তায় অসংখ্য গর্ত। যে কোনও সময়ে দুর্ঘটনার সম্ভাবনা প্রবল।

See also  মহিষমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে দেয়ালের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন।

গাজীপুর- জগতপুর বাজার রাস্তাটির বেহাল দশার কথা স্বীকার করেছেন জগতপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মজিবুর রহমান। তিনি জানান, ‘‘রাস্তাটি মেরামত ও সংস্কারের জন্য ইতিমধ্যেই উপজেলা মাসিক মিটিং ও সমন্বয় মিটিংয়ে কথা বলেছি। কিন্তু কিছুই হচ্ছে না। জনগণ গালি দেয়, মনে হয় আমাদের কিছুই করার নেই। আমরা ব্যর্থ। রাস্তাটি এলজিইডির হওয়ায় আমরা এর কাজ করতে পারছি না। আমি আশাবাদী কর্তৃপক্ষ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে রাস্তাটি মেরামত ও সংস্কার করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *